Nagad

নগদ একাউন্টের সুবিধা

বর্তমান সময়ে মোবাইল ব্যাংকিং এর হার এতো পরিমাণে বেড়েছে যে মানুষ ব্যাংকে লেনদেন ভুলেই যাচ্ছে। সবাই ছুটছে মোবাইল ব্যাংক এর দিকে।

এর এই সুযোগে বিকাশ রকেটের মতো মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিস গুলা লেনদেনের চার্জ ও বাড়িয়ে রাখছে।

কাজেই বাংলাদেশ সরকার জনগণের কথা চিন্তা করে মোবাইল ব্যাংকিং এর খরচ কমিয়ে আনতে চালু করেছে “নগদ” মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিস।

নগদ হচ্ছে ডাক বিভাগের একটি মোবাইল ব্যাংকিং সুবিধা। যা দিয়ে বিকাশ রকেটের মতো টাকা লেনদেন করা যায়।

বিকাশ রকেট এর মত একই রকম মোবাইল ব্যাংকিং সেবা হলোঃ নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিস। যার মাধ্যমে আপনি চাইলে ঘরে বসে যে কোনো ধরনের লেনদেন করতে পারেন।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা উপভোগ করতে হলে আপনাকে শুধু নগদ একাউন্ট খুলতে হবে। আর আপনি নগদ একাউন্ট একদম বিনামূল্যে একবারে সহজেই তৈরি করতে পারেন।

নগদ একাউন্টের সুবিধা

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এর সুযোগ সুবিধা গুলোর মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য এবং যেগুলো বর্ণনা না করলেই নয়, সেগুলো নিচে আলোচনা করা হলো।

ক্যাশ ইনঃ আপনি চাইলে ঘরে বসেই যেকোনো সময় যেকোনো নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্ট এর কাছ থেকে আপনার নগদ একাউন্টে ব্যালেন্স যুক্ত করতে পারবেন নগদ ক্যাশ ইন করে।

মোবাইলে রিচার্জঃ কোন সংকটাপন্ন মুহূর্তে যখন আপনারা ফ্লেক্সিলোড এর প্রয়োজন হবে;

তখন আপনি খুব সহজেই নগদ একাউন্ট ব্যবহার করে আপনার মোবাইলে রিচার্জ করে নিতে পারেন।

সেন্ড মানিঃ আপনি যদি অন্য কোন নগদ একাউন্ট এ টাকা পাঠাতে চান তাহলে নগদ সেন্ড মানি অপশন ব্যবহার করতে হবে। সেন্ড মানি অপশনটি শুধু টাকা পাঠানোর জন্য ব্যবহার হয়ে থাকে।

ক্যাশ আউটঃ যেকোনো প্রয়োজনে যেকোনো জায়গায় আপনি নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্ট থেকে আপনার নগদ একাউন্ট থেকে ক্যাশ আউট করতে পারবেন।

সঞ্চয়ঃ আপনি নগদ একাউন্ট ছাড়া টাকা পাঠাতে এবং গ্রহণ করতে পারবেন; অর্থাৎ এই সমস্ত সুযোগ সুবিধা পাওয়ার জন্য আপনার নগদ একাউন্ট না হলেও হবে। এছাড়া টাকা জমালে ইন্টারেস্ট পাবেন।

বিল পেঃ যদি আপনি যেকোন বিদ্যুৎ অপারেটরের কাছে আপনার প্রয়োজনীয় বিল পেমেন্ট করতে চান তাহলে আপনি নগদ একাউন্টের মাধ্যমে খুব সহজেই করতে পারবেন।

আর নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এর সুবিধা গুলোর মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য যে সুবিধা গুলো রয়েছে সেগুলো আমি উপরে আলোচনা করেছি।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ব্যালেন্স চেক কোড

আপনার নগদ একাউন্ট এর বর্তমান ব্যালেন্স কিংবা যেকোন সময়ে থাকা ব্যলেন্স যদি আপনি চেক করতে চান তাহলে আপনার মুঠোফোন থেকে ডায়াল করুন: *167#

এই কোডটি আপনার ফোনে ডায়াল করার পরে বিভিন্ন স্টেপ ফলো করার মাধ্যমে আপনি আপনার নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ব্যালেন্স চেক করতে পারবেন।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ব্যালেন্স চেক কোড *167#”

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং কাস্টমার কেয়ার নাম্বার

নগদ একাউন্ট সম্পর্কিত যেকোন সমস্যার মধ্যে আপনি যদি পতিত হন তাহলে এই সমস্যা থেকে উদঘাটনের জন্য আপনি চাইলে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং কাস্টমার কেয়ার নাম্বার সহযোগিতা নিতে পারেন।

এই নাম্বারটি আপনাকে সেবা দেয়ার জন্য দিনে 24 ঘন্টা এবং সপ্তাহের সাতদিনই খোলা রয়েছে; শুধুমাত্র আপনি কল দেয়ার পরেই আপনার সমস্যার সমাধান পেয়ে যাবেন।

নগদ ব্যাংকিং কাস্টমার কেয়ার নাম্বার মূলত দুইটি রয়েছে। যেগুলো সহযোগিতায় আপনি খুব সহজেই যেকোনো সমস্যার সমাধান পেতে পারবেন।

নগদ কাস্টমার কেয়ার নাম্বার দুটি হল: 16167 অথবা 09609616167” সর্বাধিক সেবা পাওয়ার লক্ষ্যে অবশ্যই এই দুটি নাম্বার আপনার ফোনে সেভ করে রাখবেন।

যাতে করে পরবর্তী সময়ে আপনার কোনো রকমের ভোগান্তিতে না পড়তে হয়।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সঞ্চয় হার

আপনি কি জানেন আপনি যদি নগদ একাউন্টে টাকা জমা রাখেন; তাহলে আপনি নগদ একাউন্ট থেকে সঞ্চয় বাবদ অনেক লাভ পাবেন।

এটি মূলত নগদ এর অথরিটি টিম কর্থিক নির্বাচন করা হয়েছে। যেখানে নির্দিষ্ট হিসাব পরিমাণ টাকার জন্য নির্দিষ্ট পরিমাণ মুনাফা প্রদান করা হবে বছরের শেষে।

মুনাফা হার ৫০০১ টাকা থেকে ৩০০,০০০ টাকা= মুনাফার পরিমাণ ৭.৫%
১০০১ টাকা থেকে ৫০০০.৯৯ টাকা= মুনাফার পরিমাণ ৫.০%
০ টাকা থেকে ১০০০.৯৯ টাকা= মুনাফার পরিমাণ .০%
আপনি যদি নগদ একাউন্টে টাকা সঞ্চয় করেন তাহলে আপনি উপরে উল্লেখিত হারে মুনাফা পাবেন।

এছাড়াও এই মুনাফা আপনি যদি বাতিল করতে চান তাহলে ১৬১৬৭ এই নাম্বারে যোগাযোগ করুন।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ইন্টারেস্ট

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ইন্টারেস্টের হার মূলত আপনার জন্য 5000 টাকা থেকে শুরু হবে। আপনি এক টাকা থেকে 1 হাজার টাকা পর্যন্ত যখন জমিয়ে খেলবেন তখন আপনার জন্য কোন ইন্টারেস্ট প্রযোজ্য হবে না।

এক্ষেত্রে আপনি সর্বনিম্ন পাঁচ হাজার টাকা আপনার নগদ একাউন্টে সঞ্চয় হিসেবে রাখলে প্রতি বছর শেষে আপনি 7.5 ইন্টারেস্ট উপভোগ করতে পারবেন।

তবে এটা আসলেই হালাল নাকি হারাম সম্পর্কে আমার কোন ধারণা নেই। বিষয়টি পর্যালোচনার জন্য আপনি এই

সেবা উপভোগ এর আগে কোন একজন অভিজ্ঞ আলেমে দ্বীনের সহায়তা নিতে পারেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button